Tag Archives: সালমান এফ রহমান

Asia Pharma Expo to share technological advancements in Bangladesh’s pharmaceutical sector

worldMap

Pharmaceutical is one of the exponentially growing sectors in Bangladesh. After achieving a two-digit growth rate annually, the country’s pharma sector is now progressing towards self–sufficiency for meeting the local demand, as well exporting.

The country is home to over 300 pharma companies, including the Beximco Group (headed by Salman F Rahman), Opsonin Pharma Limited, Square Pharmaceuticals etc., which collectively cater to 97 per cent of the total demand. In fact, the sector has emerged as the second largest contributor to the national ex-chequer after tobacco. Also, pharma boasts as being the largest employing sector in Bangladesh.

Salman F Rahman’s (সালমান এফ রহমান) Beximco Pharma, a division of the Beximco Group, has also ventured into the global market, and has made great investments for the establishment of top-notch manufacturing facilities in Bangladesh.

To further boost the country’s pharma manufacturing standards, Asia Pharma Expo 2018 (APE 2018) & Asia Lab Expo 2018 were recently held at Dhaka, Bangladesh. The event was a huge success as over 670 exhibiting companies from across 31 countries worldwide displayed their latest manufacturing technologies.

The event saw a huge footfall of over 11,400 trade visitors, who explored the latest pharma manufacturing technologies & products, including processing machineries, packaging machineries & materials, clean room & utility equipment & services, water treatment & management systems, analytical & biotech lab instruments, project consultants & turnkey contractors, API, pharma bulk actives, excipients, additives and much more.

This was the16th version of the exposition, which was organized by the Bangladesh Association of Pharmaceuticals Industries, in alliance with GPE Expo Pvt Ltd. Over the years, APE has offered an unparalleled business platform to the huge spectrum of the pharmaceutical manufacturing technologies. It has also promoted networking amongst the fraternity of pharma manufacturing plant professionals and the regulatory, research, academics, & local indenting partners. Industry domains like pharmaceuticals, healthcare, biotech, API, neutraceuticals, cosmetics, beverages and distilleries were also discussed at the expo.

Furthermore, there are brighter prospects of pharmaceutical exports from Bangladesh in the coming months. Since the inclusion of the Doha declaration in WTO/TRIPS agreement, nations that fall under the LDC category, have no compulsion to opt for pharma product patent. This implies that they can now legitimately reverse-engineer patented products, and sell in domestic as well as overseas LDC markets. This agreement creates huge export opportunities for Bangladesh, as it is amongst the handful countries that have a strong pharma manufacturing base.

Advertisements

Salman F Rahman new ATCO president

salman_f_rahman_beximco

Salman F Rahman, chairman of Independent Television, was elected president of ATCO (Association of Television Channel Owners) yesterday. Ekattor TV Managing Director Mozammel Babu and Desh TV Deputy Managing Director Arif Hasan were elected senior vice president and vice president respectively of the private television channel owners’ association in Bangladesh.  The 15-member committee has been elected for a 2-year tenure. After the election, the new committee expressed its optimism to take forward the country’s rapidly expanding media industry. New ATCO President Salman F Rahman said the election of the new committee will add momentum to the activities of ATCO. He also expressed hope that various problems that exist in this industry will be solved through the new committee. The election to ATCO’s new committee was held at a hotel in the capital.

Read Source: http://www.theindependentbd.com/post/95771

ব্যবসায়ীদের দাবি বিবেচনা করে ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হবে

সালমান এফ রহমান

কার্যকর হতে যাওয়া ভ্যাট আইনে ব্যবসায়ীরা যেসব সমস্যার কথা বলেছেন তা সমাধান করেই আইন বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

সোমবার রাত ১০ টায় রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এফবিসিসিআইর আগামী মেয়াদে নির্বাচনে পরিচালক প্রার্থী প্যানেল ‘সম্মিলিত গণতান্ত্রিক পরিষদের’ সব প্রার্থীকে ভোটারদের কাছে পরিচয় করে দেয়ার জন্য আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান এসব কথা বলেন।

উপস্থিত ব্যবসায়ী নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমি আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই যে, প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে ভ্যাট নিয়ে বিভিন্ন আলোচনা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেছে। আইনে ব্যবসায়ীদের আপত্তি অনুসারে যেসব সমস্যা আছে বলে অভিযোগ উঠেছে সেগুলো বিবেচনা করেই আইন বাস্তবায়ন করা হবে। এ বিষয়ে আপনাদের চিন্তা করতে হবে না।

এর আগে এফবিসিসিআই’র আগামী মেয়াদে সভাপতি প্রার্থী শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, এফবিসিসিআই’র মাধ্যমে ভ্যাট আইনে বেশ কয়কটি সমস্যার কথা উল্লেখ করে এনবিআরের কাছে তা সংশোধনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

কিন্তু ব্যবসায়ীদের প্রস্তাব মানা হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি। ভ্যাট নিয়ে যত বড় আইন হোক, তা ব্যবসায়ীদের বিপক্ষে গেলে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করা হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, আকাশে যত তারা এনবিআরের তত ধারা। আমরা এনবিআরকে বলবো, আসেন একসঙ্গে মিলে মিশে থাকি। ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যাই। অযথা ব্যবসায়ীদের আকাশের তারা বানাবেন না।

বর্তমানে ব্যবসার পরিস্থিতি ভাল নয় উল্লেখ করে বিজিএমইএর বর্তমান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, এফবিসিসিআইর জন্য একজন যোগ্য নেতা দরকার। কারন বর্তমানে দেশে ব্যবসার অবস্থা ভাল নয়। বিশেষ করে তৈরি পোশাক খাতে খুব দূরাবস্থা চলছে। যেখানে গত ১০ বছর ধরে এ খাতে প্রবৃদ্ধি ছিল ১৩ শতাংশ বর্তমানে তা ২ দশমিক ২১ শতাংশে নেমে এসেছে। একে প্রবৃদ্ধি বলা যায় না।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই’র আগামি মেয়াদে সভাপতি প্রার্থী শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন তার প্যানেলে অ্যাসোসিয়েশন থেকে ১৮ জন পরিচালক প্রার্থীকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে তাদের জন্য ভোট চেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে ত্রানমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হক, এফবিসিসিআইর সাবেক সব সভাপতি, প্রথম সভাপতি, সহ-সভাপতিসহ অন্যান্য পরিচালক ও ভোটাররা উপস্থিত ছিলেন।

Read Source : http://www.channelionline.com/%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%AC%E0%A6%B8%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A7%80%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%A6%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A6%BF-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A6%9A%E0%A6%A8/

সার্কভুক্ত দেশগুলোতে অবিশ্বাস্য প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে : সালমান এফ রহমান

1492363473_20.jpg
অর্থনৈতিক রিপোর্টার : আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারি খাতবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, সার্কের দেশগুলোর মধ্যে সীমানা মানুষের তৈরি। সার্কভুক্ত দেশগুলো এক জোট হলে, নিজেদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি করলে অবিশ্বাস্য প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা তৈরি হবে।
গতকাল রোববার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনৈতিক সম্ভাবনা নিয়ে সার্ক চেম্বার আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর ব্যবসায়ী, গবেষক ও সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সার্ক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (সার্ক সিসিআই) সভাপতি সুরাজ বৈদ্য বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার ৯৫ শতাংশ মানুষ আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা সার্কে বিশ্বাস করে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ মানুষ ভালো। শূন্য দশমিক ১ শতাংশ সন্ত্রাসবাদী। এদের কারণে ভালো মানুষেরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
সুরাজ বৈদ্য বলেন, সার্ক দেশগুলোর ভালো মানুষেরা এ অঞ্চলে অবাধে চলাচল করতে পারে না। এটা কি সার্কের আশাবাদের প্রতি ন্যায্য আচরণ? সন্ত্রাসীরা কিন্তু ঠিকই ঘুরে বেড়ায়। তাদের ভিসার প্রয়োজন হয় না।
সভায় আলোচনায় সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা হয়। বক্তারা বলেন, অন্য অঞ্চল যেখানে নিজেদের মধ্যে বড় অংশের বাণিজ্য করে, সেখানে সার্কের দেশগুলো মোট বাণিজ্যের মাত্র ৫ শতাংশ নিজেদের মধ্যে করে।
অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি মাহবুবুল আলম, সাবেক তত্ত¡াবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ম তামিম, পাকিস্থানের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব তৈমুর তাজমহল, ঢাকায় পাকিস্থান দূতাবাসের কমার্শিয়াল কাউন্সিলর সুলেমান খান, নেপালের গবেষক থ্রিশিজ দাহাল, শ্রীলঙ্কার গবেষক কিথমিনা হেওয়াজ বক্তব্য দেন।

পর্দা উঠলো এশিয়া এলপিজি সামিটের

opening20170226132447_orig.jpg

ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো চতুর্থ এশিয়া এলপিজি সামিট-২০১৭। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত এ সামিটের উদ্বোধন করেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।
রোববার (২৬ ফেব্রুয়ারি) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জ্বালানি বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী, এলপিজি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ’র সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর প্রাইভেট খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান, ইস্ট কোস্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান আজম জে চৌধুরী।
বসুন্ধরার মতো জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানসহ দেশি ও বিদেশি ৬৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে এই সামিটে, যারা এলপি গ্যাস বাজারজাত, সিলিন্ডার ও অন্যান্য খুচরা যন্ত্রাংশের উৎপাদক হিসেবে কাজ করছে। প্রতি দিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সামিট উন্মুক্ত থাকবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, এক সময় বলা হয়েছে বাংলাদেশ গ্যাসের উপরে ভাসছে। এইটা ছিল গ্যাস রপ্তানি করার জন্য বিএনপি-জামায়াত জোটের স্টান্ডবাজি। কোনো সমীক্ষা ছাড়াই এমন কথা বলা হয়েছিল। প্রাকৃতিক গ্যাস মূল্যবান সম্পদ। আমরা এর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে চাই। এ জন্য শুধু শিল্পে এর ব্যবহার থাকবে। অন্যান্য খাতে সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ার কথা ভাবছে সরকার। এ জন্য আমরা এলপিজির ওপর গুরুত্ব দিচ্ছি।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি তিন বছর সময় চেয়েছিলাম সারাদেশে এলপিজি পৌঁছে দেওয়ার জন্য। এর মধ্যে এক বছর গেছে। আশা করছি, আগামী দুই বছরের মধ্যে দেশের সত্তরভাগ লোকজন এলপি গ্যাসের আওতায় চলে আসবে।

নসরুল হামিদ বলেন, এলপি গ্যাস এলএনজির চেয়ে সাশ্রয়ী। আমরা গৃহস্থালির পাশাপাশি বিদ্যুৎ ‍উৎপাদন ও শিল্পে এলপিজি ব্যবহারের পরিকল্পনা নিয়েছি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে গভীর সমুদ্র বন্দর নেই। লাইটারেজে এলপিজি আনতে হয়। এতে করে পরিবহন খরচ অনেক বেড়ে যায়। গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ শেষ হলে ৩০ শতাংশ দাম কমে আসবে।
আগামী দুই বছরের মধ্যে গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ শেষ হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী।

কোম্পানি ভেদে দামের কমবেশি প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা একটি নীতিমালা প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছি। আগামী দু’ মাসের মধ্যেই এই নীতিমালা চলে আসবে। তখন এই তারতম্য থাকবে না।
সরকার এলপিজিকে নিরাপদ, সহজলভ্য ও সাশ্রয়ী মূলে জনগণের হাতে পৌঁছে দিতে চায় বলে মন্তব্য করেন নসরুল হামিদ।

তিন দিনব্যাপী এই এলপিজি সামিটের আয়োজন করেছে আন্তর্জাতিক এলপিজি অ্যাসোসিয়েশন, অল ইভেন্ট গ্রুপ-সিঙ্গাপুর ও বাংলাদেশের গ্লোবাল ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস লিমিটেড। এর আগে তিনটি আসর বিভিন্ন দেশের মাটিতে হলেও এবারই প্রথম বাংলাদেশে এই সামিট আনুষ্ঠিত হচ্ছে।
Read Source:http://www.banglanews24.com/economics-business/news/bd/556807.details

Bangladesh respected the main holder transport from India at Pangaon Terminal

salman f rahmanBangladesh invited ‘MV Nou Kollan-1’, the primary holder send from India at Pangaon Inland Container Terminal in Keraniganj. In 2015, a Coastal Shipping Agreement was marked between the two nations, allowing direct transportation of freight vessel over the outskirts. India has named this collusion as an ‘appreciated improvement’.

This progression will incredibly upgrade the network amongst India and Bangladesh as the driving time will get lessened from 30-40 days to 4-10 days.

Dignitaries like Secretary, Ministry of Shipping, Bangladesh-Ashoke Madhab Roy, Shipping Minister Shajahan Khan, Commerce Minister Tofail Ahmed, State Minister for Power, Energy and Mineral Resources Nasrul Hamid and Vice Chairman of Beximco Group Salman F Rahman graced the occasion of emptying 65 holders conveyed by the ship.

Talking on the occasion, Shipping Minister Shajahan Khan stated, “The holder development operation from India to Bangladesh will be proceeded to significantly save money on both time and cost.”

He additionally included, “Purchasers from India and abroad will be profited taking after the operation of the Pangaon Container Terminal. We will set up corners of a few banks in conjunction with Sonali Bank for giving keeping money offices to business elements.”

Respecting the entry of the compartment send worked by Riverline Logistics and Transport Ltd. Indian High Commissioner to Dhaka Harsh Vardhan Shringla stated, “Without precedent for history, Bangladesh has respected a load deliver from India; it is in fact a notorious date.”

“With this assention, now load boats can without much of a stretch drive amongst Dhaka and Kolkata in only 3-4 days. This will turn out to be a financially savvy and faster method of transportation of products. Additionally, it will enormously decongest the streets and land custom stations through which dominant part of the two-sided exchange happens as of now,” said Salman F Rahman.

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হলেন সালমান এফ রহমান

বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানকে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। রোববার আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

%e0%a6%b8%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a8-%e0%a6%8f%e0%a6%ab-%e0%a6%b0%e0%a6%b9%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a8_%e0%a6%86%e0%a6%93%e0%a7%9f%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a7%80-%e0%a6%b2%e0%a7%80

সালমান এফ রহমান তার শ্রম, মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে বেসরক‍ারি খাতের উন্নয়নে নতুন গতিবেগের সঞ্চার করবেন বলেও আশা প্রকাশ করা হয় চিঠিতে।

সফল ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমান বেক্সিমকোর প্রতিষ্ঠাতা ও আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান। তিনি ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) এরও একজন সফল নেতা। এছাড়া আবাহনী ক্রীড়া চক্রের চেয়ারম্যান হয়ে ক্রীড়া সংগঠক হিসেবেও সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। মনোনীত হয়েছিলেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব পাবলিকলি লিস্টেড কোম্পানিজ ও বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি হিসেবেও সুনাম কুড়িয়েছেন সালমান এফ রহমান। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউট (বিএনআই) ও ইংরেজি দৈনিক ইনডিপেনডেন্ট-এর সম্পাদকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান।

সালমান এফ রহমান ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ রপ্তানি ও আমদানি কোম্পানি (বেক্সিমকো গ্রুপ) প্রতিষ্ঠা করেন। বেলজিয়াম, ফ্রান্স, ব্রিটেন, জার্মানি ও নেদারল্যান্ডে শুরু করেন সীফুড ও হাড় গুঁড়া রপ্তানি। ওই রপ্তানির আয় দিয়ে শুরু করেন ওষুধ আমদানি। পরেবর্তীতে একের পর এক সফল প্রতিষ্ঠানের জন্ম দিয়ে হয়ে ওঠেন দেশের অন্যতম সফল ব্যবসায়ী নেতা।